All about CPA Marketing

আসসালামু আলাইকুম, খলিফা নেটওয়ার্কে আপনাকে স্বাগতম!
কেমন আছেন? আশা করি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছেন।

 

আজ আমরা আলাপ করবো CPA Marketing নিয়ে।

CPA এর অর্থ হচ্ছে Cost Per Acquisition. অনেকেই আবার Cost Per Action ও বলে থাকেন।
CPA একটি বিজ্ঞাপন ধারক বা বিপণন বিতান যেখানে বিজ্ঞাপনদাতারা আপনাকে একটি নির্দিষ্ট কাজের জন্য অর্থ প্রদান করে। এখানে আপনাকে কিছু কাজ দেয়া হবে যেমনঃ ফর্ম পূরণ, সফটওয়্যার ইনস্টল / ডাউনলোড, বিভিন্ন সার্ভে ইত্যাদি। CPA কোম্পানিগুলো আপনাকে দিয়ে তাদের বায়ারদের কাজ করিয়ে নেয় অনেকটা ৩য় পক্ষের মতো।

সিপিএ মার্কেটিং কীভাবে কাজ করে?

ইন্টারনেটে আয়ের বিশাল সম্ভারের মধ্যে আপনার জন্য CPA Marketing অন্যতম একটি সহজ মাধ্যম হতে পারে। আমি এটিকে অনেক সহজ মাধ্যম কেনো বললাম তার  সংক্ষিপ্ত ব্যাখ্যা…

যখন একটি কাজ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং -এ আসে, তখন সেটিকে CPA মার্কেটিং পদ্ধতিতে অনেকের কাছ থেকে করিয়ে তাদেরকে কিছু ডলার দেয়। উদাহরণস্বরূপ, কিছু সংস্থা যেমন বীমা কোম্পানি শুধুমাত্র আপনাকে তাদের ওয়েবসাইটে পাঠাতে আপনাকে নেতৃত্ব দেবে এবং কোন ব্যক্তি যখন একটি বীমা করবে, তখন আপনি আপনি কিছু অর্থ তাদের থেকে পাবেন, সেজন্য আপনার একটি রেফার কোড থাকবে।

আরেকটি উদাহরণ হচ্ছে Google Adsense বা Media.net এর মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করা। আমি ব্যক্তিগতভাবে আমার কিছু ব্লগে Google Adsense ব্যবহার করি এবং মূলত কেউ আমার সাইটের বিজ্ঞাপনগুলিতে ক্লিক করলেই Google Adsense আমাকে কিছু ডলার দেয়।

আপনি হয়তো ভাবতে পারেন… আমিতো কোন বিজ্ঞাপনে ক্লিক করি না! তাহলে সাইটের মালিক কিভাবে অর্থ উপার্জন করতে পারে?”

প্রথমত, আমি বলছি না যে Google Adsense বা Media.net বিজ্ঞাপন আপনাকে সমৃদ্ধ করবে, কারণ তারা আপনাকে মোটামুটি অর্থ প্রদান করবে। তার জন্য আপনার সাইটের একটি উল্লেখযোগ্য পরিমাণ ট্র্যাফিকের (ভিজিটরের) প্রয়োজন হবে। আপনার সাইটের ভিজিটর বাড়লেই আপনি Google Adsense বা Media.net থেকে লাভবান হতে পারবেন, আমি ব্যক্তিগতভাবে যখন একটি সাইটে গিয়ে কেক খুঁজি তখন Google Adsense বা Media.net এর এ্যড আমাকে কুকিজ দেখায়। Media.net বিজ্ঞাপন এবং Google Adsense থেকে মোটামুটি প্রতি মাসে আমার $50 অর্জন করি। মনে রাখবেন CPA থেকে আয় করতে হলে আপনাকে অবশ্যই সময় ও শ্রম দিতে হবে। তাই আমি মনে করি আপনি CPA তে পূর্ণ মনোযোগ দেয়ার আগে অবশ্যই স্থায়ী কিছু একটা করুন। এক লাফে CPA ধরবেন না তা উচিত ও নয়।

আরো বিস্তারিত ভাবে বলা যায় সিপিএ মার্কেটিং মূলত অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর কাছাকাছি একটা মার্কেটিং। সিপিএ মার্কেটিং বর্তমানে অনলাইন মার্কেটারদের কাছে একটি আলোচিত এবং আলকিত বিষয়। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে মোটামুটি আমরা সবাই জানি। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হচ্ছে সিপিএ মার্কেটিং এর কাছাকাছি একটা টার্ম। আপনি হয়তো অনলাইনে নতুন ধরণের একটি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর নাম শুনে থাকতে পারেন যেখানে কোনো রকম ডিল ছাড়াই কাজ করে ভালো পরিমান টাকা পাওয়া যায়,এটিই মূলত সিপিএ মার্কেটিং।

সিপিএ মার্কেটিং মূলতভাবে নিচের বিষয়গুলোর উপর নির্ভর করেঃ

  • ভিজিটরদের ইমেইল প্রবেশ করা বা জিপ কোড প্রদান করা।
  • টুলবার, সফটওয়্যার বা গেইম ডাউনলোড করা।
  • যেকোন সাইটে সাইন আপ করা।
  • অনলাইন গেইমের জন্য অ্যাকাউন্ট খোলা।
  • নিউজলেটারের জন্য সাইন আপ করা সহ আরো ইত্যাদি ইত্যাদি।

আপনি ভাবতে পারেন… কেনো সিপিএ মার্কেটাররা কোনো কিছু সেল না করেই টাকা পায়?

যখন আপনি সিপিএ মার্কেটিং শিখতে যাবেন, তখন অবশ্যই আপনার মাথায় এই প্রশ্ন আসবে, কাস্টমার যদি কোনো কিছু না কিনেই থাকে, তাহলে সিপিএ মার্কেটারদের কেনো টাকা দেয়া হয়?

আসলে মূলত কোনো কিছু বিক্রি করার জন্য সিপিএ মার্কেটারদের টাকা দেয়া হয় না। সিপিএ মার্কেটাররা তাদের অ্যাডভার্টাইজমেন্টের মাধ্যমে নতুন কাস্টমারকে নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে নিয়ে যায়। আর যে কোনো বিজনেসের ক্ষেত্রেই নতুন কাস্টমারদের প্রয়োজন হয়, সেই কারনেই ওই ব্যক্তি কোন কিছু না কিনলেও আপনি টাকা পাবেন।

নতুন কাস্টমারদের কোনো ওয়েবসাইটে ভিজিট করানোর মানে হচ্ছে ভবিষ্যতে তারা এই ওয়েবসাইট থেকে কোনো প্রোডাক্ট কিনতেও পারেন। আর সিপিএ মার্কেটাররা ভবিষ্যতের জন্য সম্ভাব্য ক্রেতাদের কানেক্ট করে থাকেন। এই কারনেই সিপিএ মার্কেটারদের টাকা পেইড করা হয়।

সিপিএ মার্কেটিং-এর নিশ সমূহঃ

আপনার জানা না থাকলে যেকোনো নিশ নিয়ে কাজ করলেই ভালো ইনকাম করতে পারবেন না। সেজন্য আপনাকে খুঁজে বের করতে হবে সবচেয়ে ভালো ইনকাম করা যায় এমন সকল নিশ। নিচে টপ কয়েকটি নিশের নাম দেয়া হলোঃ 

  • মোবাইল অ্যাপস নিশ।
  • ডেটিং নিশ।
  • ওয়েট লস নিশ।
  • ফিনান্স নিশ।
  • ইনস্যুরেন্স নিশ।
  • হাউজিং নিশ।
  • জবস নিশ।
  • সফটওয়্যার নিশ।
  • বিজনেস নিশ।
  • গেমিং নিশ।
  • গ্যাম্বলিং নিশ। ইত্যাদি।

সিপিএ মার্কেটিং থেকে কেমন / কত আয় করা যায়?

সিপিএ মার্কেটিং আপনাকে পেমেন্ট প্রদান করে, আপনি কিভাবে আপনার সিপিএ মার্কেটিং পরিচালনা করছেন তার উপর। তবে সাধারণত প্রতিটি কাজের জন্যই একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ আপনাকে দিবে। অর্ডারের উপর ভিত্তি করে ১ ডলার থেকে ৬ ডলার পর্যন্ত আশা করা যায়।

প্রতিটি ইমেইল ক্যাপচার করার জন্য ৩+ ডালার থেকে ২৫+ ডলার পর্যন্ত পাবেন। অন্যান্য মার্কেট প্লেস যেমনঃ ইনস্যুরেন্স মার্কেটে আপনি প্রতি কাজের জন্য ২০+ ডলার পেতে পারেন। তবে আপনার অফারে যদি একের অধিক মানুষ রেসপন্স করে থাকে, তবে ওই কাজের জন্য আপনাকে যে সিঙ্গেল একটা অ্যামাউন্ট দেয়া হতো তার সাথে ক্রেতার সংখ্যা গুণ করে আপনাকে ইনটোটাল পেইড করা হবে।

এখানে আপনি যদি ৫ ডলারের একটি কাজ শেয়ার দিলেন, এখন যদি ৪ জন রেসপন্স করে, তবে আপনি ৫ x ৪ = ২০ ডলার পাবেন।

বিগেনার হিসেবে সিপিএ মার্কেটিং শুরু করার কিছু টিপসঃ

আপনি কিভাবে সিপিএ মার্কেটিং শুরু করবেন? শুরু করার জন্য অবশ্যই আপনাকে কিছু স্টেপ ফলো করতে হবে।

প্রথমতঃ উপযুক্ত স্থান বেছে নিনঃ

সিপিএ মার্কেটিং শুরু করার আগে অবশ্যই আপনাকে একটি উপযুক্ত স্থান বেছে নিতে হবে। আপনার উচিৎ সিপিএ মার্কেটিং এর ভালো এবং উপযুক্ত স্থানগুলো সম্পর্কে রিসার্চ করে তারপর যেটি আপনার কাছে সহজ ও ভালো মনে হবে সেটি ফলো করা। আপনাকে অবশ্যই এই বিষয়ে ভালো ভাবে ধারণা নিতে হবে। আপনি চাইলে অবশ্য এই সাইটগুলোতে ভিজিট করতে পারেন, ‘Affplus.com; ‘Odigger.com; এবং ‘OfferVault.com’।

দ্বিতীয়তঃ সিপিএ নেটওয়ার্কে সাইন আপ করাঃ

সিপিএ মার্কেটিং -এ আপনাকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বা পাবলিশারের সাইটগুলোর মতোই অ্যাপ্লিকেশন ফরম পূরণ করে সাইন আপ করতে হবে। আপনাকে অবশ্যই কিছু বেস্ট সিপিএ নেটওয়ার্ক এবং মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে ধারণা নিতে হবে। আপনি চাইলে ‘AffPaying.com’ এই সাইটে ভিজিট করতে পারেন, এটি একটি অ্যাফিলিয়েট নেটওয়ার্ক রিভিউ সাইট। এই সাইট থেকে আপনি অ্যাফিলিয়েট নেটওয়ার্ক / সিপিএ নেটওয়ার্ক এর পেমেন্ট ম্যাথড বা রেফারেল কমিশন সম্পর্কে অনেক ধারণা পাবেন। আপনি চাইলে শুধু সিপিএ নেটওয়ার্ক / সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কেও সার্চ করতে পারেন।

অথবা আপনি চাইলে ‘oDigger.com’ এই সাইটও ব্যবহার করতে পারেন, এখানে আপনি অনেক রিভিও পাবেন সিপিএ নেটওয়ার্ক সম্পর্কে। আপনি যখন নেটওয়ার্ক রিভিও সম্পর্কে বুঝবেন, তখন আপনি নিজেই সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন কোন সাইটে / মার্কেট প্লেসে আপনার জয়েন করা উচিত।