Best way to Success on Youtube

আসসালামু আলাইকুম, খলিফা নেটওয়ার্কে আপনাকে স্বাগতম!
কেমন আছেন? আশা করি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছেন।

 

আজ আমরা আলাপ করবো কিভাবে ইউটিউবে সাক্সেস হওয়া যায় তা নিয়ে।

বর্তমানে ইন্টারনেট / সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে আপনি আপনাকে কিভাবে উপস্থাপন করবেন সেটি কিন্তু খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বর্তমানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অনেক ব্যক্তি আছেন যারা ইন্টারনেট / সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ জনপ্রিয়। এখানে বলে রাখি স্টারদের জনপ্রিয়তার মূল হচ্ছে ইউটিউব। ইউটিউবে অনেকেই আছেন যাদের ভিডিও হাজার / লাখ বা কোটি কোটি মানুষ প্রতিনিয়তই দেখছে। তারাই সবার কাছে ইউটিউব স্টার হিসেবে পরিচিতি হয়েছেন।

 

কি! আপনি ভাবছেন কিভাবে তারা ইউটিউব স্টার হয়ে উঠলেন?
কেন তাদের ভিডিও হাজার হাজার মানুষ দেখছে?
আমিও কি চাইলে ইউটিউব স্টার হতে পারবো? এসব প্রশ্নের উত্তর প্রতিদিন আপনার / আমার মত অনেকেই খোঁজেন।

আমেরিকার একজন ইউটিউব স্টার… জাস্টিন এসকালোনা মনে করেন যে, আপনি চাইলেই ধীরে ধীরে হয়ে উঠতে পারেন নামীদামী ইউটিউব স্টার।
আমেরিকার শিকাগোতে বাসরত এ তরুণ বেশ কয়েকটি উপায় বলে দিয়েছেন যার মাধ্যমে আপনি চাইলেই ইউটিউবে জনপ্রিয় হতে পারেন। তার বলে দেয়া উপায়গুলো নিচে দেয়া হলোঃ

প্রথমতঃ তিনি ইউটিউবে ভিডিও তৈরির জন্য পুরো আমেরিকা ঘুরে বেড়িয়েছেন। প্রথম এক / দেড় বছর তিনি যত জায়গায় গিয়েছেন সব জায়গায় ভিডিও তৈরি করেছেন এবং সেগুলো ইউটিউবে আপলোড করেছেন।

 

দ্বিতীয়তঃ যখনই আপনি কোন ভিডিও তৈরি করতে যাবেন তার আগেই আপনাকে ভাবতে হবে, কেন আপনি এটা করতে চাচ্ছেন? কি কারনে করছেন? আপনার যদি মনে হয় শুধু মজা / টাইমপাস করার জন্য এটা করেছন তাহলে আপনি এই লাইন থেকে সরে যান, এটা না করাই আপনার জন্য ভালো হবে। আগে আপানকে ভাবতে হবে যে বিষয়টিতে আপনি ভিডিও করতে যাচ্ছেন তাতে মানুষের আগ্রহ আছে কিনা!

 

তৃতীয়তঃ আপনি যে ভিডিও-টি করার প্রস্তুতি নেবেন সেটি অন্যদের চেয়ে আলাদা কিনা? এ বিষয়টি ভাবতে হবে। কারণ ইউটিউবে লাখ লাখ ভিডিও আছে। আপনি অন্যদের চেয়ে যদি ব্যতিক্রমী কিছু করতে না পারেন, তাহলে কিন্তু দর্শক আপনার ভিডিও দেখবে না বা আকৃষ্ট হবে না।

 

চতুর্থতঃ শুধু ভিডিও করতে জানলেই হবে না, ভিডিওটি মানসম্মত হচ্ছে কিনা সেদিকে অবশ্যই নজর দিতে হবে। ভালো করে ভিডিও ইডিট করা জানতে হবে। তারপর সেটি ইউটিউবে আপলোড করতে হবে। কোন রকম করে বানিয়ে একটি ভিডিও আপলোড করে দিলেই সেটি মানুষ দেখবে না।

 

পঞ্চমঃ ইউটিউবে কাজ শুরু করতে ভয় করবেন না। আপনি হয়তো মনে মনে ভাবতে পারেন যে, আমার কাছে দামী ভিডিও ক্যামেরা নেই বা ভালো কোন যন্ত্রপাতি নেই, কিভাবে করবো! শুধু ভালো ক্যামেরা / যন্ত্রপাতি থাকলেই ভিডিও জনপ্রিয় হয় না। বর্তমানে সবার কাছেই এন্ড্রয়েড মোবাইল আছে, আপনার কাছে থাকা মোবাইলের ক্যামেরাই হতে পারে আপনার সম্বল।

 

কিন্তু ভিডিও করার জন্য আপনার কাছে ভালো আইডিয়া আছে কিনা সেটিই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। যে বিষয়টির উপর আপনি ভিডিও করছেন সেটি যদি ফানি (মজাদার) কিংবা গুরুত্বপূর্ণ ধরনের কোন বিষয় হয় তাহলে সেটি দর্শকদের আকর্ষণ করবে।

আপনার ভিডিওগুলো এমনভাবে তৈরি করা উচিৎ যাতে দর্শকরা সেই ভিডিওগুলো দেখে। দর্শকরা যাতে আপনার ভিডিও দেখে মনে করে আপনি তাদেরই একজন।

মনে রাখবেন দর্শকদের দৈনন্দিন জীবনকে আপনার নিজের জীবনের সঙ্গে একাত্ম করতে হবে। যে কোন ভুয়া বা মিথ্যা ভিডিও তৈরি করে জনপ্রিয়তা পাওয়ার চেষ্টা করবেন না। বরং আপনি আপনার প্রতিদিনের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ এবং মজাদার বিষয়গুলো দিয়েই ভিডিও করে সবার সামনে তুলে ধরুন। এইগুলো মেনেই আপনি হতে যেতে পারেন একজন ইউটিউব স্টার।