Earn money from Kholifa Network

আসসালামু আলাইকুম, খলিফা নেটওয়ার্কে আপনাকে স্বাগতম!
কেমন আছেন? আশা করি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছেন।

 

আপনি চাইলেই খলিফা নেটওয়ার্ক এর মাধ্যমে আমাদের এই ওয়েবসাইটে বাংলায় আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারবেন, এবং বিকাশ / রকেট / ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে ক্যাশ তুলে নিতে পারবেন।

আপনি যদি ছাত্র / চাকুরিজীবি / বেকার কিংবা গৃহিনী হয়ে থাকনে আর আপনার হাতে দৈনিক ২/৩ ঘন্টা ব্যায় করার মত সময় থেকে থাকে, তবেই আপনি আমাদের খলিফা নেটওয়ার্ক ওয়েবসাইটের সদস্য হয়ে বাংলায় আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারেন।

**আপনার লেখা কিন্তু আপনার নামেই প্রকাশিত হবে সাথে থাকবে আপনার ছবি এবং বায়োগ্রাফি। আর আপনার লেখার জন্য পাবেন সন্মানী।

**আপনার লেখা হতে হবে সর্বনিম্ন ৯০০ ওয়ার্ড থেকে ২৫০০ ওয়ার্ডের। প্রতি লেখার জন্য সন্মানী হারঃ

  • ৯০০ থেকে ১১০০ ওয়ার্ডের আর্টিকেলের জন্য ১৫০/- টাকা।
  • ১১৫০ থেকে ১৮০০ ওয়ার্ডের আর্টিকেলের জন্য ২০০/- টাকা।
  • ১৮৫০ থেকে ২৫০০ ওয়ার্ডের আর্টিকেলের জন্য ৩০০/- টাকা।

সন্মানি যেভাবে পাবেনঃ

সন্মানী পাওয়ার জন্য আপনার বিকাশে / রকেট একাউন্ট থাকতে হবে। আপনার নাম্বারে বিকাশ / রকেট না থাকলে, পেমেন্ট পাবার জন্য অবশ্যই একাউন্ট খুলে নিতে হবে। আমরা কোন দোকানের নাম্বারে / অন্য কারোর নাম্বারে বিকাশ / রকেটের মাধ্যমে টাকা পাঠাবো না। বিকাশের / রকেটের খরচ আমরাই দিয়ে দিবো। আপনার সন্মানী থেকে কোন চার্জ কাটা হবে না।

আপনার লেখা পাবলিশ হলেই আপনি আপনার সন্মানির জন্য আবেদন করতে পারবেন। অথবা আপনার সন্মানির একটা রাউন্ড ফিগার হলেও আপনি সন্মানি চাইতে পারবেন। সন্মানি চাওয়ার ২৪/৭২ ঘন্টার মধ্যেই (ওয়ার্কিং আওয়ার) আপনার সন্মানি আপনার নাম্বারে বিকাশ / রকেটের মাধ্যমে পাঠিয়ে দেয়া হবে।

লেখার জন্য আপনার যা যা থাকা লাগবেঃ

  • ইংরেজী পড়ে বুঝতে পারা এবং ইংরেজী থেকে বাংলায় গুছিয়ে লেখার যোগ্যতা।
  • আপনাকে অভ্র / ইউনিকোডে লিখতে হবে।
  • আপনার ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ কম্পিউটার থাকতে হবে।

**লেখার টপিক নিতে হবে ইংরেজী সোর্স থেকে অথবা বাংলা থেকেও নিতে পারেন। আপনার লেখা কিন্তু ৯৮% ইউনিক হতে হবে। অনলাইনে হাজার হাজার ওয়েবসাইট আছে, যেখান থেকে আপনি আপনার ইচ্ছেমত টপিক বেছে নিতে পারেন। আপনি যেই টপিক বেছে নিবেন সেই টপিক সম্পর্কে আপনার অন্তত ৮০% জ্ঞান থাকতে হবে। ইংরেজী থেকে বাংলায় ট্রান্সলেট করে গুছিয়ে লিখতে হবে (এজন্যই, ইংরেজী পড়ে বুঝতে পারার যোগ্যতা থাকতে হবে)। অথবা এমনও হতে পারে আপনি ১টি বাংলা আর্টিকেল থেকে কিছু আইডিয়া নিয়ে সেটিকে আপনার মনের মাধুরী মিশিয়ে নিজের মতো করে গুছিয়ে লিখতে পারেন। সুন্দর একটি শিরোনাম দিয়ে টপিক শুরু করে ১০০% কমপ্লিট করবেন, মনে রাখবেন অন্য কোন ওয়েবসাইট থেকে কিছু কপি (চুরি) করে দিয়ে দিবেন না, কিছু চুরি করলে আপনাকে বিনা নোটিশে ব্যান করা হবে।

**আমাদের ওয়েবসাইটির ফন্ট ইউনিকোড, সুতরাং আপনাকে ইউনিকোডে লিখতে হবে, বিজয় কীবোর্ড দিয়ে লিখলে হবে না। আপনি যদি ইউনিকোডে লিখতে না পারেন, তবে বিজয় কীবোর্ড দিয়ে দিয়ে লিখে ইউনিকোডে কনভার্ট করে নিতে পারেন। অথবা অভ্র কীবোর্ড ডাউনলোড করে সেটি দিয়ে খুব সহজেই লিখতে পারেন। আপনার লেখা ১০০% নির্ভুল হতে হবে।

**আপনি যা লিখবেন তা অবশ্যই ছবিসহ সাজিয়ে লিখে সাবমিট করতে হবে এবং এই কাজ আপনাকে অবশ্যই কম্পিউটার দিয়েই করতে হবে। আপনার লেখা প্রকাশের জন্য আপনাকে খলিফা নেটওয়ার্ক -এর পাবলিশিং টুলের অ্যাক্সেস দেয়া হবে। আপনি হয়তো মোবাইল দিয়ে লিখতে পারবেন, কিন্তু ছবিসহ কিছু কাজ আছে যা মোবাইলে করতে পারবেন না। তাই আপনাকে কম্পিউটার দিয়েই কাজ করতে হবে।

উপরক্ত বিষয়গুলোর কোন ঘাটতি থাকলে দয়া করে খলিফা নেটওয়ার্ক-এ রেজিস্ট্রেশন করবেন না।

আপনি যেসব বিষয় নিয়ে লিখতে পারবেনঃ

আমাদের ওয়েবসাইটের টপিকগুলো আউটসোর্সিং / ফ্রিল্যান্সিং / অনলাইন টিপস এন্ড ট্রিকস এবং টেকনোলোজি নির্ভর। সুতরাং, আউটসোর্সিং / ফ্রিল্যান্সিং / অনলাইন টিপস এন্ড ট্রিকস এবং টেকনোলোজি রিলেটেড যে কোন লেখা আপনি লিখতে পারবেন। এগুলোর বাইরে কোন টপিক লিখলে সেটা পাবলিশ করা হবে না। এখন, দেখে নিন আপনি কী কী বিষয়ে লিখতে পারেন।

১.  অনলাইনে আয়ঃ (আউটসোর্সিং / ডিজিটাল মার্কেটিং / এফিলিয়েট মার্কেটিং)

**অনলাইনে আয়ের যতগুলো মাধ্যম রয়েছে তার সবগুলো নিয়েই লিখতে পারবেন।
কিন্তু অবশ্যই সেটা সত্য, বাস্তব সন্মত এবং আমাদের দেশের জন্য উপযোগী হতে হবে, স্ক্যাম / স্প্যাম / পেমেন্ট দেয়না, এমন সাইটের রিভিউ দেয়া যাবেনা। আউটসোর্সিং ক্যাটাগরিতে আউটসোর্সিং ওয়েবসাইটের সোর্স / পরিচিতি / টিউটোরিয়াল সহ আউটসোর্সিং রিলেটেড যে কোন লেখা লিখতে পারেন। ডিজিটাল মার্কেটিং-এ টিউটোরিয়াল, গাইডলাইনসহ ডিজিটাল মার্কেটিং এর সকল শাখা-প্রশাখা নিয়ে লিখতে পারেন, এফিলিয়েট মার্কেটিং এর ক্ষেত্রেও সেম

২. মোবাইল ম্যানিয়াঃ (টিউটোরিয়াল / মোবাইল রিভিউ / মোবাইল অপারেটর নিউজ / অ্যাপস্ / গেমস্)

এই ক্যাটাগরিতে মোবাইল সম্পর্কিত যে কোন লেখা লিখতে পারবেন।
টিউটোরিয়াল ক্যাটাগরিতে কী লিখবেন সেটা বুঝতেই পারছেন। ‘কি এবং কিভাবে’ -এ জাতীয় যে কোন টিউটোরিয়াল নিয়ে লিখতে পারেন। মোবাইল রিভিউ ক্যাটাগরিতে যে কোন মোবাইলের ভালো/মন্দ, ফিচার, অন্য মোবাইলের সঙ্গে তুলনাসহ আনুসঙ্গিক সবকিছু নিয়েই লিখতে পারেন। মোবাইল অপারেটর নিউজ বিভাগে লিখতে পারেন আমাদের দেশের সব মোবাইল অপারেটরের ভাল মন্দ, সুবিধা অসুবিধা, কোন নির্দিষ্ট সার্ভিসের বিপরীতে অপারেটরগুলির তুলনামূলক প্রার্থক্যসহ নানা বিষয়। এমনকি কোন একটা বিশেষ সার্ভিসের ক্ষেত্রে আপনার ভোগান্তি বা অভিজ্ঞতার কথাও তুলে ধরতে পারেন। এবং বিভিন্ন অপারেটর -এর সপ্তাহের বিশেষ অফার / সেরা অফার এ জাতীয় লেখাও লিখতে পারেন। আর অ্যাপস্ ও গেমস্ ক্যাটেগরিতে লিস্টিং রিভিউ লিখতে পারেন।

৩. ডিজাইন ডেস্কঃ (গ্রাফিক্স ডিজাইন / ওয়েব ডিজাইন)

যদি আপনি একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার হয়ে থাকেন, তাহলে বিভিন্ন রকম ডিজাইনের উপর বিভিন্ন টিউটোরিয়াল লিখতে পারেন। আর যদি না হন, তাহলে বিভিন্ন ডিজাইনের লিস্টিং করে রিভিউ দিতে পারেন। আপনি ওয়েব ডিজানইনার হলে, নতুনদের জন্য টিউটোরিয়াল লিখতে পারেন।

৪. টেক ট্রেন্ডঃ

সায়েন্স ও টেকনোলোজি রিলেডেট যে কোন লেখা লিখতে পারেন এই ক্যাটাগরিতে।

৫. পিসি হেল্পঃ (কম্পিউটার / লিনাক্স / উইন্ডোজ / ম্যাক)

পিসি হেল্প ক্যাটাগরিতে আপনি কম্পিউটার রিলেটেড যে কোন লেখা লিখতে পারেন। আর লিনাক্স / উইন্ডোজ / ম্যাক সাব ক্যাটাগরিগুলো তো বুঝাই যাচ্ছে, লিনাক্স / উইন্ডোজ / ম্যাক তিনটাই অপারেটিং সিস্টেম। এগুলোতে জানা/অজানা, টিউটোরিয়াল, গাইডলাইনসহ কম্পিউটারের সাথে সম্পর্কযুক্ত যে কোন লেখাই লিখতে পারবেন।

৬. ব্লগিংঃ (ওয়ার্ডপ্রেস / ব্লগার / জুমলা / ওয়েব হোস্টিং / কন্টেন্ট রাইটিং / ইউটিউব / অ্যাডসেন্স / সোশাল মিডিয়া)

এই ক্যাটাগরিতে ব্লগিং রিলেটেড যে কোন লেখা লিখতে পারেন। আর সাব-ক্যাটাগরিগুলোর মধ্যে ওয়ার্ডপ্রেসের জন্য টিউটোরিয়াল, থিম ও প্লাগিন নিয়ে লিখতে পারেন, ব্লগারের জন্য টিউটোরিয়াল, কাস্টোমাইজেশন, টেমপ্লেট লিস্টিং নিয়ে লিখতে পারেন। জুমলার ক্ষেত্রেও টিউটোরিয়াল, জুমলা টেমপ্লেট ও কাস্টোমাইজেশন নিয়ে লিখতে পারেন।

ওয়েব হোস্টিং  ক্যাটাগরিতে হোস্টিং বিষয়ক লেখা লিখতে পারেন। যারা হোস্টিং এর ব্যবসা করেন তারা নিজেদের কোম্পানী প্রমোটের জন্য আর্টিকেল লিখতে পারেন।
**যদি পেমেন্ট নিতে চান তো ব্যাক-লিংক নিতে পারবেন না, আর ব্যাক-লিংক চাইলে পেমেন্ট চাইতে পারবেন না। 🙂 

কন্টেন্ট রাইটিং ক্যাটেগরিতে আর্টিকেল রাইটিং এর ওপরে বিভিন্ন টিপস্ / ট্রিক্সস কিংবা রাইটিং স্কোপ নিয়ে লিখতে পারেন। ইউটিউব ক্যাটেগরিতে ইউটিউবের সকল কিছু নিয়ে লিখতে পারবেন যেমন, আয় করার উপায়, আয় বাড়ানোর উপায়, সফল ইউটিউবার হবার উপায় সহ যে কোন লেখা।

অ্যাডসেন্স ক্যাটেগরিতে লিখতে পারেন অ্যাডসেন্সের নিয়ম-কানুন, আপডেট, অ্যাডসেন্স থেকে কারা কেমন আয় করছে, সফলতার গল্পসহ আরো অন্যান্য অনেক বিষয়ে লিখতে পারেন।

আর সোশাল মিডিয়ায় লিখতে পারেন ফেসবুক, টুইটার, লিঙ্কেডিন, গুগল প্লাস, ভিকে, হোয়াটস্অ্যাপ সহ সব সোশাল মিডিয়ার নতুন ফিচার, টিপস্ এন্ড ট্রিকস্।

লেখা হতে হবে সম্পূর্ণ ইউনিকঃ

**আমাদের খলিফা নেটওয়ার্ক ওয়েবসাইটে কী কী বিষয়ের উপর লিখতে পারবেন সে সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা পেয়েছেন।
**এখন খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা পয়েন্ট টুকে রাখুন মাথার মধ্যে, প্রয়োজনে কাগজে-কলমেও লিখে রাখতে পারেন।
**আপনার লেখায় যদি ডুপ্লিকেট কিছু থাকে, তবে আপনার লেখা তো পাবলিশ করা হবেই না বরং আপনাকে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে আজীবনের জন্য ব্যানড্ করা হবে। অর্থাৎ আর কোনদিনই আপনি আমাদের সাইটে কোন লেখা লিখতে পারবেন না।

ডুপ্লিকেট থেকে বাঁচার জন্য আপনি যা যা করতে পারেনঃ

**আপনি এমন টপিক বেছে নিন যা নিয়ে এখন পর্যন্ত বাংলায় লেখা হয়নি। এটা কিন্তু মোটেও কঠিন কিছু নয়, হাজার হাজার ইংরেজী ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলোতে লাখ লাখ আর্টিকেল রয়েছে, আপনি টেকনোলোজি রিলেটেড যে কোন ওয়েবসাইট থেকে টপিক বেছে নিতে পারেন। লেখার জন্য আপনার সিলেক্ট করা টপিক-টি বাংলায় লিখে সার্চ দিয়ে দেখে নিতে পারেন এ বিষয়ে কোথাও কোন লেখা আছে কিনা। যদি না থাকে তাহলে সেটিই হবে ইউনিক, সুতরাং দেরি না করে লিখে ফেলুন। ইউনিক টপিকের লেখাগুলোকে আমরা গুরুত্ব সহকারে পাবলিশ করবো। যদি ইউনিক টপিক নিয়ে লিখেন তো আপনি পুরোপুরি নিশ্চিত থাকতে পারেন যে, আপনার লেখায় কোন ডুপ্লিকেট লাইন থাকবে না। আর যারা ইউনিক টপিক নিয়ে লিখবেন, তাদেরকেই আমরা অধিক প্রায়োরিটি দেবো।

**লেখার জন্য কখনোই বাংলা সোর্স দেখবেন না। সব সময় ইংরেজী সোর্স দেখবেন, সেখান থেকে আইডিয়া নিবেন আর আপনার মাথায় যা আসে তা নিয়েই নিজের মত নিজের ভাষায় গুছিয়ে লিখবেন।