Offline Link Building

আসসালামু আলাইকুম, খলিফা নেটওয়ার্কে আপনাকে স্বাগতম!
কেমন আছেন? আশা করি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছেন।

 

আজ আমরা আলাপ করবো অফলাইন লিঙ্ক বিল্ডিং সম্পর্কে।

লিঙ্ক বিল্ডিং কিন্তু একজন ফ্রীলান্সার / ব্যবসায়ীর জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। লিঙ্ক বিল্ডিং করলে একাধারে যেমন এসইও -তে এডভান্টেজ পাওয়া যায় ঠিক তেমনি পাওয়া যায় অনেক অনেক রেফারেল ট্রাফিক। লিঙ্ক বিল্ডিং করার জন্য অনেক অনেক এজেন্সি রয়েছে যারা আপনার হয়ে কাজ করে দিবে, কিন্তু আপনি যদি কিছু ট্রিক্সস এপ্লাই করতে পারেন তাহলে এজেন্সি ছাড়াই আপনি লিঙ্ক বিল্ডিং করে নিতে পারবেন। মূলত আপনি যদি আপনার ব্যাবসায় সিরিয়াস হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই লিঙ্ক বিল্ডিং এবং রেপুটেশন আর্নিং এর প্রতি অনেক অনেক মনযোগী হতে হবে। আমাদের মধ্যে অনেকেই অনলাইন মার্কেটিং, এসইও বা এফিলিয়েট মার্কেটিং -এর সাথে সম্পৃক্ত রয়েছেন তারা ইতিমধ্যেই লিঙ্ক বিল্ডিং কিভাবে করতে হয় তা কম-বেশি ভালো করেই যানেন। কিন্তু মজার বিষয় হচ্ছে আপনি অনলাইনের মত অফলাইনেও লিঙ্ক বিল্ডিং করতে পারবেন এবং আর্নিং করতে পারবেন। মূলত লিংক বিল্ডিং নিয়েই আমাদের এই লেখা। চলুন শুরু করিঃ

অফলাইন লিঙ্ক বিল্ডিং কি?

আমাদের মনে প্রশ্ন আসতে পারে যে, এই অফলাইন লিঙ্ক বিল্ডিং কি?
মূলত আপনার অফলাইন একটিভিটির মাধ্যমে বিভিন্ন সাইট থেকে আপনার সাইটে ব্যাকলিঙ্ক তৈরী হবার যেই প্রক্রিয়া তাই হচ্ছে অফলাইন লিঙ্ক বিল্ডিং। অফলাইন লিঙ্ক বিল্ডিং -এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে এটির কোয়ালিটি। অফলাইন লিঙ্ক বিল্ডিং -এর মাধ্যমে আপনি কোয়ালিটি সম্পন্ন সোর্স থেকে ব্যাকলিঙ্ক পাবেন এবং আপনার সব ব্যাকলিঙ্ক গুলো হবে ন্যাচারাল। এই ব্যাকলিঙ্ক গুলো হবে ১০০% গুগল ফ্রেন্ডলি এবং তার সাথে আপনি পাবেন পর্যাপ্ত রেঙ্কিং। অফলাইন লিঙ্ক বিল্ডিং কিভাবে করবেন তার কিছু বর্ণনা নিচে দেয়া হলোঃ

লোকাল ইভেন্টের আয়োজন করাঃ

অফলাইন লিঙ্ক বিল্ডিং এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ও কার্যকরি উপায় হচ্ছে লোকাল ইভেন্ট করা। শুধুমাত্র একটা লোকাল ইভেন্ট আপনাকে এনে দিতে পারে অসংখ্য কোয়ালিটি সম্পূর্ণ লিঙ্ক এবং আপনার ব্যপক পরিচিতি। তবে শুধুমাত্র লোকাল ইভেন্টের আয়োজন করলেই যে আপনি ব্যাকলিঙ্ক পাবেন তা নয়। এজন্য আপনাকে অবশ্যই কিছু কৌশল অবলম্বন করতে হবে।

  • আপনার পরিচিত লোকাল মিডিয়ার সাংবাদিকদের / কর্মীদের দাওয়াত দিন।
  • আপনার নিশ (niche) / প্রথম সারির ব্লগারদের দাওয়াত দিন।
  • আপনার সাথের কম্পেটিটরদের দাওয়াত দিন।
  • ইভেন্টে অংশগ্রহণকারী কিছু সিনিয়র মেম্বারদের বক্তৃতা দিতে উৎসাহ দিন, তাদের বক্তৃতার জন্য ব্যাবস্থা করুন এবং তাদের বক্তৃতার একটি সামারাইজড ভার্শন আপনার ওয়েবসাইটে দিন এবং বিভিন্ন সোশ্যাল সাইটে তাদের ট্যাগ করুন যা আপনার ব্যাকলিঙ্ক বাড়াতে সাহায্য করবে।
  • যাদের দাওয়াত দিয়েছিলেন এবং যারা ইভেন্টে অংশ গ্রহন করেছেন তাদের ডাটাবেজ তৈরি করুন এবং তাদের কাছে প্রফেশনাল ভাবে ফিডব্যাক জানুন।
  • যারা অংশগ্রহন করতে পারেনি, তাদের সাথেও যোগাযোগ করুন এবং তাদের অনুপস্থিতির কারণ সম্পর্কে জানুন এবং তাদের থেকেও ফিডব্যাক নিন।
  • সবসময় চেষ্টা করুন ইভেন্টে কিছু নতুনত্ব আনার জন্য যা আপনার ইভেন্টকে সবার সামনে আরো আকর্ষণীয় করে তুলতে সাহায্য করে।

যেকোন ইভেন্ট স্পন্সর করুনঃ

ইভেন্ট অরগানাইজড করা যদি আপনার কাছে ঝামেলার মনে হয় অথবা আপনার কাছে যদি সময় / জনবল না থাকে তাহলে আরেকটা ভাল উপায় হচ্ছে আপনি যেকোন একটি ইভেন্টকে স্পন্সর করুন। মোটামুটি সব ধরনের ইভেন্টেই একটা স্পন্সর পেইজ থাকে এবং আপনি চাইলে কিন্তু সেখান থেকেই অনায়াসে খুব সহজেই ব্যাকলিঙ্ক তৈরী করতে পারেন। শুধু তাই নয়, সেই ইভেন্ট নিয়ে যতগুলো লিখা হবে সবগুলোতেই স্পন্সর হিসেবে আপনার কথা উল্যেখ থাকবে। অর্থাৎ অনেকগুলো অথরিটি সাইট থেকেই আপনি ব্যাকলিঙ্ক পেতে পারেন। স্পন্সর হিসেবে আপনাকে ইভেন্টে  ইনভাইট করা হবে এবং আপনি অনেকের সাথে সম্পর্ক তৈরী করার সুযোগ পাবেন এবং তারপর সেখান থেকেও ব্যাকলিঙ্ক পাবেন।

বিভিন্ন ইভেন্টে অংশগ্রহন করুনঃ

শুধুমাত্র ইভেন্ট আয়োজন করে / ইভেন্ট স্পন্সর করে ব্যাকলিঙ্ক পাবেন তা কিন্তু নয়, আপনি বিভিন্ন ইভেন্টে অংশগ্রহন করেও কিন্তু ব্যাকলিঙ্ক পেতে পারেন। প্রতিটি ইভেন্টেই আপনার পরিচিতি বৃদ্ধি করার জন্য নতুন নতুন মানুষের সাথে সম্পর্ক স্থাপন করুন। প্রতিটি ইভেন্টেই কিন্তু আপনি আপনার ব্যাবসাকে প্রচার করার পর্যাপ্ত সুযোগ পাবেন, এবং আপনাকে কিন্তু সেই সুযোগটি কাজে লাগাতে হবে।

বিভিন্ন ইন্টারভিউ তে অংশগ্রহন করুনঃ

আপনি আপনার কাজের মাধ্যমে এমন কিছু করুন যেন আপনাকে / আপনার ইভেন্টকে নিয়ে লোকাল / ইন্টারন্যাশনাল ব্লগারদের মধ্যে কৌতুহল সৃষ্টি হয় এবং তাহলেই তারা আপনার ইন্টারভিউ নিতে আগ্রহী হবেন। এটিই মূলত আপনার পরিচিতি অনেক অনেকগুন বাড়িয়ে দিবে। একটি ইন্টারভিউ শুধু আপনাকে একটি / দুটি ব্যাকলিঙ্ক দিবে তা নয়, এটির মাধ্যমে আপনি অনেক অনেক ব্যাকলিঙ্ক পাবেন।

এছাড়াও আরো অসংখ্য ছোট ছোট অফলাইন এক্টিভিটি আপনাকে লিঙ্ক বিল্ডিং করতে সহায়তা করবে। অফলাইন লিঙ্ক বিল্ডিং নিয়ে ছোট ছোট প্রতিষ্ঠানগুলো যদিও মাথা ঘামায় না কিন্তু কর্পোরেট লেভেলের প্রতিষ্ঠানগুলো ঠিকই এই কৌশলটি অবলম্বন করে। আপনি আপনার আশেপাশে একটু খেয়াল করলেই বুঝবেন। তাই এখনই সময় আপনিও অফলাইন লিঙ্ক বিল্ডিং নিয়ে ভাবতে শুরু করুন।

 

 

আপনি যদি আপাদের ওয়েবসাইটে নতুন হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আমাদের ওয়েবসাইটের লিংক সেভ করে রাখুন, আমাদের ফেইসবুক পেজ + ইউটিউব চ্যানেল-এ সাবস্ক্রাইব করুন।
এবং অবশ্যই খলিফা নেটওয়ার্কের পাশে থাকবেন।