লিনাক্স উবুন্টুর স্পীড বাড়াবেন যেভাবে

আসসালামু আলাইকুম, খলিফা নেটওয়ার্কে আপনাকে স্বাগতম!
কেমন আছেন? আশা করি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছেন।

 

আজ আমরা জানবো কিভাবে লিনাক্স উবুন্টু এর স্পীড বাড়াবেন তা নিয়ে।

 

সংক্ষিপ্তসার: উবুন্টু লিনাক্স গতি বাড়ানোর জন্য কিছু ব্যবহারিক পরামর্শ ও টিপস। এখানে উবুন্টুর প্রায় বেশিরভাগ সংস্করণের জন্য কার্যকর এছাড়াও লিনাক্স মিন্ট এবং অন্যান্য উবুন্টু ভিত্তিক সংস্করণেও এই টিপস প্রয়োগ করা যেতে পারে।

আপনি হয়ত খেয়াল করেছেন যে, উবুন্টু অনেকক্ষন ব্যবহার করার পরে, সিস্টেমটি কিছুটা ধীর গতির হয়ে থাকে।
এই পোষ্টে আমরা উবুন্টুকে দ্রুত চালিত করার জন্য কয়েকটি টুইট এবং টিপস দেখব।

উবুন্টুতে সামগ্রিক সিস্টেমের কর্মক্ষমতা কীভাবে উন্নত করা যায় তা দেখার আগে, প্রথমে সিস্টেম কেন সময়ের সাথে ধীর হয়ে যায় সে বিষয়ে প্রথমে চিন্তা করা যাক। এর বেশ কয়েকটি কারণ থাকতে পারে। আপনার কাছে বেসিক কনফিগারেশন সহ একটি ভালো কম্পিউটার থাকতে পারে। আপনি অনেক অ্যাপ্লিকেশন ইনস্টল করে থাকতে পারেন যা বুট করার সময় চালু হয়ে যায় এবং অতিরিক্ত র‍্যাম খায়।

এখানে আমি কয়েকটি টপিক তালিকাভুক্ত করেছি যা আপনার উবুন্টুর গতি অনেকটা বাড়িয়ে তুলতে সহায়তা করবে।

আমি এই ট্রিকসগুলো উবুন্টুর বেশ কয়েকটি পুরানো সংস্করণেও ব্যবহার করেছি তবে আমি বিশ্বাস করি যে এটি উবুন্টুর যেকোন সংস্করণের পাশাপাশি লিনাক্স মিন্ট, এলিমেন্টারি ওএস লুনা ইত্যাদির মতো উবুন্টু ভিত্তিক অন্যান্য লিনাক্স সংস্করণেও ব্যবহার করা যেতে পারে I

 

১. ডিফল্ট grub লোড টাইম:

ডিফল্ট grub আপনাকে duel বুট ওএসের পরিবর্তন করতে বা সেটিং এ যাওয়ার জন্য 10 সেকেন্ড অপেক্ষা করায়। যা আপনার কম্পিউটার ওপেন হতে বেশি সময় ব্যায় করে। এর অর্থ হ’ল আপনাকে আপনার কম্পিউটারের পাশে বসতে হবে এবং যত তাড়াতাড়ি সম্ভব উবুন্টুতে বুট করার জন্য এন্টার কী চাপতে হবে।
একটু সময় লাগছে, তাই না? প্রথম কৌশলটি হ’ল এই বুট লোড টাইম পরিবর্তন করা।

এজন্য আপনার কম্পিউটারের টার্মিনাল ওপেন করে টাইপ করতে হবে —

sudo gedit /etc/default/grub

এরপর GRUB_TIMEOUT=10 কে GRUB_TIMEOUT=2 করে দিবেন। এটি আপনার কম্পিউটার বুটের সময় মাত্র 2 সেকেন্ড ব্যায় করবে। আর আপনার যদি ডুয়েল ওএস না থাকে তাহলে 0 করে দিতে পারেন। গ্রুব কনফিগারেশন পরিবর্তন হয়ে গেলে, নিচের কমান্ড করতে হবে-

sudo update-grub

২. স্টার্টআপ অ্যাপ্লিকেশনের পর্যালোচনা করুন:

সময়ের সাথে সাথে আপনি অ্যাপ্লিকেশনগুলি ইনস্টল করা শুরু করেন। আপনি যদি নিয়মিত এটির ফস পাঠক হন তবে আপনি সপ্তাহের সিরিজের অ্যাপ্লিকেশন থেকে অনেকগুলি অ্যাপ্লিকেশন ইনস্টল করে থাকতে পারেন।

এর মধ্যে কয়েকটি অ্যাপ আপনার কম্পিউটার ওপেন করার সাথে সাথে শুরু হয় এবং আপনার র‍্যাম খেতে থাকে। ফলাফল: প্রতিটি বুটের পর একটি উল্লেখযোগ্য সময়ের জন্য ধীর কম্পিউটার। স্টার্ট আপ এপ্লিকেশ সেটিং করার জন্য আপনার উবুন্টু ড্যাশ এ ক্লিক করে স্টার্টআপ অ্যাপ্লিকেশ লিখে সার্চ দিন:

Ubuntu Startup Applications

এখানে, আপনি দেখতে পাবেন আপনার কম্পিউটার চালু হবার সাথে সাথে কোন কোন অ্যাপ্লিকেশনগুলি লোড / রান হয়। এখন দেখুন কোন কোন অ্যাপ্লিকেশন আপনার কম্পিউটার বুট করার সাথে সাথে রান করার প্রয়োজন নেই, সেগুলি নির্দ্বিধায় অপসারণ / রিমুভ করে দিন:

Select Ubuntu Startup Applications

৩. অ্যাপ্লিকেশন লোডের গতি বাড়ানোর জন্য প্রিলোড ইনস্টল করুন:

প্রিললোড হ’ল একটি ডেমন যা ব্যাকগ্রাউন্ডে নিবরে রান হয় এবং ব্যবহারকারীর আচরণ / ঘন ঘন অ্যাপ্লিকেশন চালানোর বিশ্লেষণ করে। এটি ইন্সটল করার জন্য আপনার কম্পিউটারের টার্মিনাল ওপেন করুন এবং প্রিলোড ইনস্টল করতে নিম্নলিখিত কমান্ডটি ব্যবহার করুন:

sudo apt-get install preload

এটি ইনস্টল করার পরে, আপনার কম্পিউটার বন্ধ করে পুনরায় চালু করুন / রিস্টার্ট দিন এবং এটির সম্পর্কে ভুলে যান। কারন এটি অটোম্যাটিক ভাবে ব্যাকগ্রাউন্ডে কাজ করবে।

৪. সফটওয়্যার আপডেটের জন্য সেরা লোকেশন সিলেক্ট করুন:

আপনি আপনার কম্পিউটার আপডেট করতে কোন মিরর / লোকেশন ব্যবহার করছেন তা যাচাই করা ভাল। উবুন্টু সফ্টওয়্যার সংগ্রহস্থলটি বিশ্বজুড়ে সকল দেশে তাদের মিরর / লোকাল সার্ভার ব্যবহার করে, তাই আপনি আপনার নিকটবর্তী লোকেশন নির্বাচন করবেন। তাহলে আপনি কোন সফটওয়ার ইন্সটল দিলে / উপডেট দিলে তা সাথে সাথেই নিকটবর্তী সার্ভার থেকে দ্রুত আপনার সিস্টেমকে আপডেট করে দেয়।

এজন্য আপনাকে Software & Updates->Ubuntu Software tab->Download From থেকে Other সিলেক্ট করে Select Best Server -এ ক্লিক করে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে হবে।

Ubuntu Best Server

অপেক্ষা করার সময় এটি একটি পরীক্ষা চালাবে এবং আপনাকে জানাবে যে আপনার জন্য সেরা মিরর / সার্ভার লোকেশন কোনটি। সেরা মিরর / সার্ভার লোকেশন সেট (Choose Server) করার পর Close এ ক্লিক করে রিলোড দিলেই কাজ শেষ, এখন আপনি কোন সফটওয়্যার ইন্সটল দিলে / আপডেট দিলে তা সাথে সাথেই হয়ে যাবে।

৫. apt-get এর পরিবর্তে apt-fast ব্যবহার করুন:

apt-get দিয়ে কিছু ইন্সটল / আপডেট দিলে একটু বেশি সময় ব্যায় হয়, তাই apt-get এর পরিবর্তে apt-fast কমান্ড ব্যবহার করলে আপনার সময় কম লাগবে। apt-fast ইন্সটল করার জন্য নিচের কমান্ড গুলো ব্যবহার করুন:

sudo add-apt-repository ppa:apt-fast/stable
sudo apt-get update
sudo apt-get install apt-fast

এবার আপনি যখন কোন সফটওয়্যার ইন্সটল / উপডেট দিবেন তখন sudo apt-get এর স্থানে sudo apt-fast ব্যবহার করবেন, এতে করে আপনার অনেক সময় সাশ্রয় হবে।

৬. apt-get update থেকে Language ign রিমুভ করে দিন:

আপনি কি কখনও sudo apt-get update -এর আউটপুটটি লক্ষ্য করেছেন? এটিতে তিন ধরণের লাইন রয়েছে- hit, ing এবং get…

আপনি যদি IGN লাইনগুলি লক্ষ্য করেন তবে দেখতে পাবেন যে তাদের বেশিরভাগ ভাষা অনুবাদের সাথে সম্পর্কিত। আপনি যদি সমস্ত অ্যাপ্লিকেশন, প্যাকেজগুলি ইংরেজিতে ব্যবহার করেন তবে প্রতিবার ইংরেজি থেকে ইংরাজীতে প্যাকেজ ডাটাবেসের অনুবাদ করার প্রয়োজন নেই।

আপনি যদি apt-get থেকে এই ভাষা সম্পর্কিত আপডেটগুলি বন্ধ করেন তবে এটি apt-get update -এর গতি বাড়িয়ে দিবে।

এটি করতে, নিম্নলিখিত ফাইলটি খুলুন:

sudo gedit /etc/apt/apt.conf.d/00aptitude

এরপর নিচের লেখাটি Copy করে ফাইলের শেষে Past করে save দিন:

Acquire::Languages "none";
00aptitude

৭. Overheating কমিয়ে দিন:

অতিরিক্ত হিটিং বর্তমানে কম্পিউটারের একটি সাধারণ সমস্যা। একটি অত্যধিক গরম কম্পিউটার বেশ ধীর গতিতে চলে। আপনার সিপিইউ ফ্যান যখন ইউসাইন বোল্টের মতো চলতে থাকে তখন প্রোগ্রাম খুলতে অনেক বেশি সময় লাগে।
উবুন্টু -তে দুটি সরঞ্জাম রয়েছে যা আপনি অতিরিক্ত তাপ হ্রাস করতে ব্যবহার করতে পারেন, যা হচ্ছে TLP এবং CPUFREQ…

TLP ইনস্টল ও ব্যবহার করতে, টার্মিনালে নিম্নলিখিত কমান্ডগুলি ব্যবহার করুন:

sudo add-apt-repository ppa:linrunner/tlp
sudo apt-get update
sudo apt-get install tlp tlp-rdw
sudo tlp start

CPUFREQ ইনস্টল ও ব্যবহার করতে, টার্মিনালে নিম্নলিখিত কমান্ড ব্যবহার করুন:

sudo apt-get install indicator-cpufreq

ইনস্টল করার পর, আপনার কম্পিউটার বন্ধ করে পুনরায় চালু করুন / রিস্টার্ট দিন এবং এটির সম্পর্কে ভুলে যান। কারন এটি অটোম্যাটিক ভাবে ব্যাকগ্রাউন্ডে কাজ করবে।

৮. LibreOffice -কে faster করুন:

আপনি যদি লিব্রে অফিস বেশি ব্যবহার করে থাকেন, তবে আপনি এটি দ্রুততর করার জন্য ডিফল্ট লিব্রে অফিসকে কিছুটা Optimized করতে পারেন। এজন্য প্রথমে LibreOffice খুলুন তারপর Tools->Options -এ যান, এরপর বাম পাশের বার থেকে Memory সিলেক্ট করুন এবং মেমরি বাড়ানোর সাথে সাথে Systray Quickstarter -এ টিক দিয়ে দিন। এবং Advanced এ গিয়ে Use a Java runtime environment এর টিক তুলে দিন।

৯. হালকা টাইপের ডেস্কটপ ব্যবহার করুন (যদি চান):

আপনি যদি ডিফল্ট GNOME / Unity ডেস্কটপ এনভায়রনমেন্ট ব্যবহার করেন তাহলে আপনার কম্পিউটার কিছুটা স্লো থাকতে পারে, কিন্তু আপনি যদি Xfce বা LXDE ইনস্টল করেন তাহলে আপনার কম্পিউটার অনেক ফাস্ট হয়ে যাবে কারন এগুলো হালকা (lightweight) তাই হালকা ডেস্কটপ এনভায়রনমেন্ট ব্যবহার করাই উত্তম যদি আপনার পিসি কনফিগারেশন তেমন ভালো না হয়।

Xfce বা LXDE -এই ডেস্কটপ এনভায়রনমেন্টগুলি কম র‌্যাম ব্যবহার করে এবং কম সিপিইউ গ্রহণ করে। এগুলি তাদের নিজস্ব হালকা ওজনের অ্যাপ্লিকেশনগুলির সাথে আসে যা আপনার উবুন্টুকে দ্রুত চালাতে আরও বেশি সহায়তা করে।

১০. হালকা টাইপের অ্যাপ্লিকেশ ব্যবহার করুন:

কিছু ডিফল্ট বা জনপ্রিয় অ্যাপ্লিকেশন এর রিসোর্স অনেক ভারী হয় এবং নিম্ন মানের কনফিগারেশন এর কম্পিউটারের জন্য উপযুক্ত নাও হতে পারে। এজন্য আপনি যা করতে পারেন তা হ’ল ডিফল্ট অ্যাপ্লিকেশনগুলির কিছু বিকল্প ব্যবহার করা। উদাহরণস্বরূপ, উবুন্টু সফটওয়্যার সেন্টারের পরিবর্তে AppGrid ব্যবহার করুন। প্যাকেজ ইনস্টল করতে সরাসরি Gdebi ব্যবহার করুন। LibreOffice Writer ইত্যাদির পরিবর্তে AbiWord ব্যবহার করুন।

এই পোষ্ট কি আপনার লিনাক্স উবুন্টু এর গতি বাড়ানোর জন্য সহায়ক হয়েছে? এই টিপসগুলি কি আপনার কাজে লেগেছে?

এই পোষ্ট সম্পর্কিত আপনার মতামত শেয়ার করুন। প্রশ্ন / পরামর্শ পেতে কমেন্ট করুন। সবাইকে ধন্যবাদ।।